E-Shram Card: এর সুবিধা ও অসুবিধা | কিভাবে বানাবেন ই-শ্রম কার্ড | কারা কারা আবেদন করতে পারবেন। Step By Step Full Detiles

 E-Shram Card: এর সুবিধা ও অসুবিধা | কারা কারা আবেদন করতে পারবেন | Step By Step Full Detiles


      About E-Shram Card

    কেন্দ্রীয় সরকার ২০২১ সালের আগস্ট মাসে Unorganised sector এর শ্রমিকদের সুবিধার্থে E-Shram নামে পোটাল(Portal) নিয়ে আসে। ই-শ্রম এর ব্যাপারে সরকার জানায় Unorganised sector এর ৩৮Crores শ্রমিকের এটা থেকে সুবিধা হবে। এখন পর্যন্ত প্রায় ২০Crores এর মত শ্রমিক রেজিস্ট্রেশন করেছেন। এই ই-শ্রম পোটাল এ রেজিস্ট্রেশন করলে আপনাকে একটা ই-শ্রম কার্ড (E-Shram Card) দেওয়া হবে। এই কার্ড থাকলে শ্রমিকরা দেশের যে কোনো প্রান্তে বিভিন্ন সামাজিক সুরক্ষা যোযনার সুবিধা নিতে পারবেন। এছাড়া কোনো কারণ বসত যদি কর্ম অবস্থায় মৃত্যু হয়, তবে বিমার সুবিধাও রয়েছে। আসুন, আরো জেনে নিয় ই-শ্রম কার্ড এবং ই-শ্রম পোটাল সম্পর্কে..

    E-Shram Card এ কারা কারা আবেদন করতে পারবেন।

    এখানে মূলত সবাই আবেদন করতে পারবেন, কিন্তু ইপিএফও (EPFO) এবং ইএসআই(ESI) এর অন্তর্ভুক্ত তারা এখানে আবেদন করতে পারবেন না। এছাড়া সকলেই আবেদন করতে পারবেন, যেমন- কৃষক, রাজমিস্ত্রি, যেকোনো ব্যবসায়ী, দোকান দার, গাড়ি ড্রাইভার, এছাড়া আরো অনেকে আবেদন করতে পারবেন, যারা ইপিএফ এর মধ্যে না পরে। 

    E-Shram Card আবেদন কিভাবে করবেন।

    ই-শ্রম কার্ড এর জন্য আবেদন করার জন্য 16 থেকে 59 বছরের মধ্যে বয়স হতে হবে। এখানে আবেদন করার জন্য ই-শ্রম এর অফিসিয়াল ওয়েবসাইট এ ভিজিট করে আবেদন করতে পারবেন, ওয়েবসাইট লিঙ্ক- https://eshram.gov.in/ এছাড়া আপনি CSC(Common Service Center) এ গিয়ে আবেদন করতে পারবেন। আবেদন করার পর আপনি আপনার E-Shram Card পেয়ে যাবেন।

    E-Shram Card আবেদন করতে কত টাকা লাগবে।

    ই-শ্রম কার্ড, আপনি নিজেই এই প্রতিবেদন পড়ার আবেদন করতে পারবেন। তাই অনুরোধ করবো শেষ পর্যন্ত সঙ্গে থাকার। 

    বন্ধুরা ই-শ্রম কার্ড আবেদন যদি কোনো কম্পিউটার দোকান থেকে করেন তাহলে আপনার ৫০ থেকে ৬০ টাকা খরচ হবে। এখানে আবেদন ‌ফি লাগে না কিন্তু যে কার্ড আপনাকে দেওয়া হবে, সেটা প্রিন্ট করতে এবং PVC CARD এর দাম নেওয়া হয়। কিন্তু যদি আপনি CSC(Common Service Center) থেকে আবেদন করেন তাহলে আপনার কাছ থেকে ২০ থেকে ৩০ টাকা নিতে পারে। তবে এটা দাম আপনার কার্ড এর কোয়ালিটির উপর নির্ভর করে।

    E-Shram Card আবেদন করার জন্য কি কি লাগবে।

    ই-শ্রম কার্ড এর আবেদন করার জন্য তেমন বিশেষ কাগজপত্রের প্রয়োজন হবে না। তবুও এখানে 

    🔹 আধার কার্ড

    🔹 আধার লিঙ্ক মোবাইল নাম্বার

    🔹ব্যাঙ্ক পাসবুক

    E-Shram Card এর সুবিধা কি।

    ২০২০ তে করোনা ভাইরাস দেশের অবস্থা করেছিল তা কারোরই ভোলার কথা নয়। তার সঙ্গে দেশের হাজার হাজার শ্রমিকদের কথা। সেই সময় কথা মাথায় রেখে কেন্দ্র সরকার ‌এই ই-শ্রম পোটাল নিয়ে আসে, এই ই-শ্রম পোটাল যে সকল‌ শ্রমিক রেজিস্ট্রেশন করেছেন, তারা ভবিষ্যতে যেকোনো সরকারি যোযনার সুবিধা নিতে পারবেন। ২০২০ সালের মতো পরিস্থিতি যদি আবার কখনো আসে তখ‌ন ই-শ্রম কার্ড এর সাহায্যে তা সরাসরি শ্রমিকদের কাছে পৌঁছে দেওয়া সম্ভব হয়ে। এছাড়া তারা দেশের যে কোনো প্রান্তে এই সুবিধা নিতে পারবেন।

    E-Shram Card এ কত টাকা কাটবে প্রতিমাসে।

    আসলে এখানে সঠিক ভাবে বলা সম্ভব নয় যে কত টাকা কাটবে প্রতিমাসে, এখানে এতটুকু জানা গেছে বয়সের উপর নির্ভর করে টাকা কাটবে। সঠিক তথ্যের জন্য ই-শ্রম এর অফিসিয়াল ওয়েবসাইট এ গিয়ে দেখতে পারেন। https://eshram.gov.in/

    E-Shram Card থেকে কত টাকা পাওয়া যাবে।

    ই-শ্রম কার্ড থেকে টাকা পাওয়া ব্যাপার টা কতটা সত্তি তা বলা মুস্কিল, কিন্তু এখানে জীবন বীমা থাকছে ২লাখ টাকা। এছাড়াও জানা গেছে 60 বছর বয়স হলে বিধ্বা ভাতা (Old Pension) ৩ হাজার টাকা করে পাওয়া যাবে।

    Leave a Comment