How to Fix Google Adsense Error Bangla | Adsense Low Value Content | canbebangali

How to Fix Google Adsense Error

How to Fix Google Adsense Error

How to Fix Google Adsense Error: একজন‌ ব্লোগার যখন অনেক কষ্ট করে অ্যাটিকেল লেখে। এই সময় তার দুটো উদ্দেশ্য হতে পারে, এক সে নিজের টেলেন্ট কে মানুষের সামনে তুলে ধরতে চাই আর অপরটি হল সে ব্লোগিং থেকে টাকা ইনকাম করতে চায়(How To Earn Money From Bloging)। আর আমাদের ৯৯.৯% মানুষের উদ্দেশ্য হল টাকা ইনকাম করা। কিন্তু এখানে চাইলেই টাকা ইনকাম করা সম্ভব নয়। ব্লোগিং এ টাকা ইনকাম করার মূখ্য উৎস হল Google Adsense, এখান থেকে টাকা ইনকাম করার জন্য আপনাকে গুগল এডসেন্স এর অ্যাপ্রুভ(How to Fix Google Adsense Error) নিতে হয়।

আর এই স্টেপ হল প্রতিটা নতুন ব্লোগার এর জন্য দুঃখ জনক ব্যাপার। এখানে Google Adsense Error এর সমস্যা হয়। এই Adsense Error এর জন্য অনেক কারণ হতে পারে, যা আমি নীচের দিকে আলোচনা করবো। আপনি যদি একজন নতুন ব্লোগার হয়ে থাকেন বা নতুন ব্লোগিং শুরু করতে চাচ্ছেন, তাহলে আপনি এই অ্যাটিকেলটি সম্পুর্ণ পড়ুন। তাহলে আপনি কখনো Google Adsense Error বা Google Adsense Rejected এই সমস্যার সম্মুখীন হতে হবে না। আসা করছি সঙ্গে থাকবেন।

Google Adsense Reject কেন হয় (Google Adsense Reject Reason) 

Google Adsense Reject হওয়ার অনেক গুলো কারন আছে, যা আপনি এই অ্যাটিকেলটি সম্পুর্ণ পড়লে জানতে পারবেন। 

Google Adsense Reject হওয়ার প্রধান কারণ হলো – Low Value Content/Thin Content এছাড়া আরো কারণ আছে‌।‌ যেমন- 

  • Minimum Connect Requirements
  • Make sure your site has unique high quality content and a good user experience
  • Webmaster Quality Guidelines for Thin Content
  • Webmaster Quality Guidelines

Minimum Connect Requirements

আপনি যদি নতুন ব্লোগিং শুরু করে Google Adsense এর জন্য আবেদন করেন তাহলে এই Minimum Connect Requirements এই সমস্যা আসতে পারে। এখানে “Minimum Connect Requirements” এর মানে হচ্ছে। আপনি যখন ব্লোগিং শুরু করেছেন এবং ১০-১৫ টা অ্যাটিকেল লিখছেন। এরপর আপনি অ্যাডসেন্স এর জন্য আবেদন করেছেন। এই সময়‌ এই সমস্যার সম্মুখীন হতে হয়। কারণ ব্লোগিং এর নিয়ম অনুসারে আপনাকে কম করে ৫০টা অ্যাটিকেল লিখতে হবে। তার পর আপনি Adsense এর জন্য আবেদন করুন, তাহলে আর এই সমস্যা আপনার সামনে আসবে না। 

Make sure your site has unique high quality content and a good user experience

এখানে দেখুন প্রথমেই লেখা আছে “Make sure” অর্থাত আপনি নিশ্চিত যে আপনি যা লিখেছেন তা একেবারে অন্যদের থেকে আলাদা এবং দর্শকদের সুবিধা জনক। এখানে আপনি শুধু অ্যাটিকেল লিখলেই এডসেন্স অ্যাপ্রুভেল পাওয়া যাবে না। আপনাকে নতুন কিছু পোস্ট করতে হবে যা গুগল এর আছে ভালো মান পাবে এবং আপনি খুব তারাতারি এডসেন্স এর অনুমতি পেয়ে যাবেন। 

Webmaster Quality Guidelines for Thin Content

এখানে ব্লোগার এর নিয়ম সম্পর্কে বলা হয়েছে Webmaster Quality Guidelines for Thin Content. এখানে ” Webmaster Quality Guidelines ” এর দ্বারা ব্লোগার এর নিয়ম নির্ধারন করা হয়। যেমন – ইউটিউব এর ১০০০ সাসক্সাইবার এবং ৪০০০ ঘন্টা, ফেসবুক এর মধ্যে ৩ মিনিটের উপরের ভিডিও আপলোড করলে ফেসবুক মনিটাইজেশন হয়। এবং Thin Content এর মানে হল দুর্বল বা ছোটো অ্যাটিকেল। ব্লোগ পোস্ট লেখার একটা নিয়ম আছে,

এখানে আপনি কম করে ৩০০ ওয়ার্ড লিখতে হয় এবং উপরে আপনি ১০০০-৫০০০ ওয়ার্ড পর্যন্ত লিখতে পারেন । আপনি যত বেশি ওযার্ড এর অ্যাটিকেল লিখবেন তত তাড়াতাড়ি এডসেন্স অ্যাপ্রুভেল পাওয়া যাবে। কিন্তু ৩০০ ওয়ার্ড এর মধ্যে অ্যাটিকেল লিখলেও এডসেন্স অ্যাপ্রুভেল পাওয়া যায় এবং Thin Content এর সমস্যা আসে না। আপনি যদি নিজের অ্যাটিকেল এর মধ্যে কত ওযার্ড আছে জানতে চান তাহলে আপনাকে Word Count করার ওয়েবসাইট এর সাহায্য নিতে হবে। আপনি চাইলে এই ওয়েবসাইট এর সাহায্য নিতে পারেন –Click Here👉 Word Count

Webmaster Quality Guidelines

আমি এই Webmaster Quality Guidelines সম্পর্কে কিছুটা তথ্য উপরের এক পয়েন্ট এ আলোচনা করেছি। কিন্তু এখানে সম্পুর্ন আলোচনা করবো। Webmaster Quality Guidelines এই সমস্যা আসার কারণ হল – আপনি যদি অন্যের অ্যাটিকেল কপি করে নিজের ওয়েবসাইট এ পোস্ট করেন, বা অন্যের ছবি, কোনো রেজিস্ট্রার সংস্থার নাম, কোনো ব্যক্তির পার্সনাল বিষয় নিয়ে আলোচনা এবং আরো অনেক কিছুর কারনে এই সমস্যা দেখা যায়।

আপনি যদি নিজে অ্যাটিকেল না লিখে কোনো অ্যাপের মাধ্যমে অ্যাটিকেল লিখেন তাহলেও এই সমস্যা দেখা যায়। এছাড়া আপনি যদি গুগল থেকে কোনো ছবি ডাউনলোড করে কোনো এডিটিং ছাড়ায় নিজের পোস্টে লাগালে এই সমস্যা দেখা দেয়। আপনি যদি নিজের লেখা অ্যাটিকেল এবং নিজের তৈরি ছবি ব্যবহার করেন তাহলে এই Webmaster Quality Guidelines এর সমস্যা আসে না।

Low Value Content এর সমাধান কি (Low Value Content Problem Solution)

আপনার ব্লোগে‌ যদি Low Value Content এই সমস্যা দেখা দিচ্ছে তাহলে চিন্তা করার দরকার নেই। একজন নতুন ব্লোগার এর এই সমস্যা আসাটা সাধারণ ব্যাপার। কারণ প্রথম অবস্থায় কেউ জানে না যে ব্লোগিং সঠিক পদ্ধতি কি। আসলে এই Low Value Content সমস্যা আপনি নিজেই ঠিক করতে পারবেন। প্রথমে আপনাকে জানতে হবে Low Value Content কেন আসে। 

Low Value Content এর সমস্যা যদি আপনার ওয়েবসাইট এ আসে তাহলে আপনি ভেবে যে আপনি যে ওয়েবসাইট গুগলে সাবমিট করছেন, সেটা কিছু সমস্যা আছে। যেমন – 

  • Unwanted Pages
  • Outdated Articles
  • Broken Links
  • Doorway Page

Unwanted Pages

আপনার ব্লোগে এমন কিছু পেজ আছে যার দ্বারা কোনো তথ্য প্রদান করা হয়নি বা যে পেজ কোনো কাজের নয় সেই পেজকে Unwanted Pages বলে।

আমরা জানি যে About us, Contact us এই সব পেজ index করে রাখতে হয়। কিন্তু এর মধ্যে এমন‌ কিছু পেজ index হয়ে থাকে যা no-index হবে। এই সব Unwanted Pages এর জন্য Low Value Content সমস্যা আসতে পারে।

Outdated Articles 

আপনি যখন একটি ব্লোগ পোস্ট লিখতে যান তখন অনেক ভাবেন বা Keyword Research আর যত Tranding Keywords এর উপর অ্যাটিকেল‌ লেখার চেষ্টা করেন। কিন্তু একজন নতুন ব্লোগার একটা ভুল করেন‌ যে সে বেশি পোস্ট লেখার জন্য Outdated Articles বা পুরোনো টপিক নিয়ে অ্যাটিকেল লিখেন । আপনি যদি এই Outdated Articles বা পুরোনো টপিক নিয়ে অ্যাটিকেল লিখেন তাহলে আপনি Low Value Content এই সমস্যার সম্মুখীন হতে পারেন। এরজন্য আপনাকে সব সময় নতুন টপিক নিয়ে অ্যাটিকেল লিখতে হবে। নতুন টপিক খোঁজার জন্য আপনি 👉 Google Trands এর সাহায্য নিতে পারেন।

Broken Links

আপনি যদি আপনার কোনো অ্যাটিকেলে কোনো ওয়েবসাইট বা কোনো অ্যাটিকেল এর লিঙ্ক দিয়ে থাকেন, এবং এই লিঙ্ক যদি সঠিক ভাবে কাজ না করে তাহলে সেটাকে Broken Links বলা হয়। এটাকে আরো সহজ ভাষায় বলা যায়। যেমন আপনি একটা Link Redirect করলাম যা আপনার ধরুন নতুন ওয়েবসাইট এ নিয়ে যাবে। কিন্তু এখানে যদি এই Link Redirect কাজ‌ না বা আমার নতুন ওয়েবসাইট এ নিয়ে না যায় তাহলে এটা Broken Links বলা হবে।

আপনার ওয়েবসাইট এ যদি এই ধরনের Broken Links খুব বেশি থাকে তাহলে আপনার ওয়েবসাইট এ Low Value Content দেখা দিতে পারে। 

Doorway Pages

আপনি যদি গুগলে গিয়ে সার্চ করেন site:yoursitename.tld তাহলে আপনি দেখতে পাবেন যে আপনার ওয়েবসাইটে কত গুলো পেজ আছে।‌ এবং কোনগুলো কাজের আর কোনগুলো কাজের না। যে সব কাজের‌ নয় সে সব পেজ গুলোকে সিলেট করে দিন। যেমন Tags, Catagories, Page Numbers, Blank Pages ইত্যাদি।

Doorway Pages ডিলেট করার দুটো রাস্তা আছে, আপনি যদি ফ্রি ব্লোগার ব্যবহার করেন, তাহলে আপনি site:yoursitename.tld এ প্রথমে Doorway Pages দেখে নিন, এবং Google Search Console এর url removal এর সাহায্যে ডিলেট করে নিন। এছাড়া আপনি যদি ওয়াড়প্রেস ব্যবহার করেন তাহলে Yoast SEO Plugin ব্যবহার করতে পারেন।

গুগল এডসেন্স রিজেক্ট সমাধান (How to Fix Google Adsense Error)

গুগল এডসেন্স রিজেক্ট হওয়ার সব কারণগুলো উপরে আলোচনা করা হয়েছে। এছাড়াও কিছু পয়েন্ট আপনাকে অনুসরন করতে হবে যা আপনার Adsense Reject এর সমস্যার সমাধান করাতে পারে।

Tips -1

আপনি সর্বপ্রথম আপনার ওয়েবসাইট এর মধ্যে থাকা সমস্ত Broken Links Remove করে দিন। 

Tips -2

আপনার ওয়েবসাইট এর মধ্যে বিনা কাজের বা Unwanted Pages গুলোকে ডিলেট করে নিন। যে সকল পেজ বা url ভিজিটারদের কোনো কাজের নয় সব ডিলেট করে নিন।

Tips -3

আপনি যে অ্যাটিকেল বা পোস্ট লিখেন এর মধ্যে কিছু তথ্য প্রদান করার চেষ্টা করুন। এবং সব সময় নতুন কিছু লেখার চেষ্টা করুন। এখানে আপনি যে পোস্ট লিখবেন, সেটা যেন সঠিক তথ্যের সাথে লেখা থাকে এবং ভিজিটার এসে যেন সঠিক তথ্য পায়। আপনি যে পোস্ট লিখবেন তা সম্পুর্ন করার জন্য যতটুকু লেখার প্রয়োজন ‌ততটুকুই লিখবেন। শুধু শুধু বেশি ওয়ার্ড ‌করা জন্য লেখার প্রয়োজন নেই।

Tips -4

আপনার ওয়েবসাইট এর পুরোনো পোস্ট গুলোর Tittle Change বা নতুন করে কিছু তথ্য প্রদান করুন। তার পর আবার শেয়ার করুন।

Tips -5 

আপনি Google Trands এর সাহায্যে নতুন নতুন টপিক এর‌ উপর অ্যাটিকেল লিখুন। যা একটা নতুন ওয়েবসাইট কে খুবই সাহায্য করে গ্ৰো করার জন্য।

Tips -6

আপনার ওয়েবসাইট এর sitemap resubmit করুন। অনেক সময় sitemap এর সমস্যার জন্য Google Adsense Approval পাওয়া যায় না।

আরো পড়ুন;

👉 LSI Keywords কি | ব্লোগিং এর জন্য LSI Keywords কতটা গুরুত্বপূর্ণ ?

👉 Top 5 Learning Apps For Mobile

👉 Adsense Approval Post লেখার উপায় কি।

1 thought on “How to Fix Google Adsense Error Bangla | Adsense Low Value Content | canbebangali”

Leave a Comment