Online Money Earning: বাড়িতে বসে থেকে টাকা ইনকাম করতে পারবেন। এই উপায়ে..

 Online Money Earning: বাড়িতে বসে থেকে টাকা ইনকাম করতে পারবেন। এই উপায়ে..

    বিস্তারিত (Introduction)

    ২০২০ যেভাবে পুরো বিশ্বে অথ্যসংকট নিয়ে এসেছিল, এই সময় অনেক মানুষ নিজের টেলেন্ট(Talent) কে কাজে লাগিয়ে “Online Money Earning” এই রাস্তা বেছে নিয়েছিল। এবং তারা ভালো পরিমানের টাকাও ইনকাম করেছিলেন। তার পর করোনা আতঙ্গ কমে গেলে মানুষ “Online Money Earning” এটাকে Part Time Work হিসাবে বেছে নেন। এখন ২০২২ করোনা ভাইরাস এখন অনেক জায়গায় তার আতঙ্গ বজায় রেখেছে। আবার লকডাউন(Lockdown) দেখা যাচ্ছে জায়গায় জায়গায়। এই সময় আপনিও নিজের Full Time কাজের সাথে অনলাইন মানি আনিং কে Part Time Work হিসাবে শুরু করতে পারেন। আপনার কাজের শেষে যে সময়টা ফ্রি বসে থাকেন এই সময় করতে পারেন। এখানে আপনার কোনো দিকেই অসুবিধা হবে না। যদি কোনো কারনে আপনার চাকরি চলে যায় বা আপনি ছেড়ে দেন সেই সময় এই পার টাইম কাজটাকে ফুল টাইম করতে পারবেন। আপনি যদি অনলাইনে টাকা ইনকাম করতে চান তাহলে এই উপায় গুলো দেখে নিন।

    অনলাইনে টাকা কিভাবে ইনকাম করবেন (How To Earn Money Online)

    Online এ টাকা ইনকাম করার আজকের দিনে অনেক রাস্তা আছে, কিন্তু আজকের আলোচনাতে এমন কিছু অনলাইন কাজ নিয়ে কথা বলবো যা প্রায় অনেক মানুষ করে এবং ভালে পরিমানের টাকা ইনকাম করছে। আপনি Youtube, Facebook, Instagram এ ভিড়িও দেখেন, কিন্তু আপনি যাদের ভিডিও দেখেন তারা কিন্তু এখান থেকে টাকা ইনকাম করছে। আপনিও ঠিক একই কাজ করে টাকা ইনকাম করতে পারবেন। ইউটিউব, ফেসবুক, ইন্টাগ্যাম এ ভিডিও বানিয়ে টাকা ইনকাম করতে পারবেন। এছাড়া আপনি যদি ভিডিও এডিটিং (Video Editing) গ্ৰাফিক ডিজাইন (Graphic Designing), ফ্রিলান্সিং (Freelanceing, ডাটা এন্ট্রি (Data Entry) ইত্যাদি কাজ জানেন তাহলেও আপনি অনলাইনে টাকা ইনকাম করতে পারবেন। 

    অনলাইনে টাকা ইনকাম করার উপায় (Online Money Earning Way)

    ১.ইউটিউব ভিডিও বানিয়ে টাকা ইনকাম (Create Youtube Video And Earn Money)

    জকের সময় অনলাইন এ টাকা ইনকাম করার সবচেয়ে বেশি জনপ্রিয় ও বিশ্বাস যোগ্য প্লাটফর্ম হলো ইউটিউব (YouTube). ইউটিউব এ কাজ করার জন্য আপনাকে একটা ইউটিউব চ্যানেল (YouTube Channel) তৈরি করতে হবে এবং নির্দিষ্ট একটা নীচ(Nich/Catagory) এর উপর ভিড়িও তৈরি করে আপলোড করতে হবে। আপনি ফ্রি টাইমে ভিডিও তৈরি করে আপলোড করবেন, এখানে আপনার কোনো ধরনের টাকা ইনভেস্ট করতে হবে না। ইউটিউব সম্পুর্ন ফ্রি তে এই পরিষেবা দিয়ে থাকে। এখানে যদি আপনি ভালো ভাবে কাজ করেন এবং আপনার চ্যানেল মোনিটাইজ করাতে পারেন তাহলে এখান থেকে ভালো পরিমানের টাকা ইনকাম করতে পারবেন। আপনি ইউটিউব এ সার্চ করুন “How to earn money from YouTube” তাহলে আপনি বুঝতে পারবেন পুরো বিষয়টি।

    ইউটিউব (Youtube) থেকে প্রতিমাসে কমকরে ৭ হাজার টাকা ইনকাম করতে পারবেন, কিন্তু আপনি ভালো ভাবে কাজ করলে লাখ টাকা পয়ন্ত ইনকাম করতে পারবেন।

    ২. ফ্রিলান্সিং থেকে কিভাবে টাকা ইনকাম করতে পারবেন (How To Earn Money From Freelance)

    ফ্রিলান্সিং (Freelance) অনেক পুরোনো একটা প্রক্রিয়া অনলাইন থেকে টাকা ইনকাম করার। এখান থেকে মানুষ ভালো পরিমানের টাকা ইনকাম করে, ফ্রিলান্সিং সম্পর্কে যদি আপনার ধারণা না থাকে তাহলে ইউটিউব এ ভিডিও দেখতে পারেন। এটা সবচেয়ে পুরোনো প্রক্রিয়ার সাথে খুবই সাধারণ এখানে প্রথমদিন থেকেই টাকা ইনকাম করা সম্ভব। ফ্রিলান্সিং এ অন্যের জন্য কাজ করবেন। আজকের দিনে এমন অনেক ছোটো বড়ো ‌সংস্থা আছে যারা নিজেদের কাজ অন্যদের দিয়ে করিয়ে নেয় টাকা দিয়ে, আসলে এটাই ফ্রিলান্সিং। আপনার যদি কোনো ধরনের ডিজিটাল কাজ করতে পারেন, যেমন ডাটা এন্ট্রি (Data Entry), ভিডিও এডিটিং (Video Editing), গ্ৰাফিক ডিজাইন (Graphic Designing), ওয়েবসাইট মেকিং (Website Create), এছাড়া আরো অনেক কাজ আছে যা আপনি ‌ফ্রিলাসিং এ করে টাকা ইনকাম করতে পারবেন। এখানে ইনকাম নির্দিষ্ট নয়, আপনার কাজের উপর আপনার ইনকাম নির্ভর করে। আরো বিস্তারিত জানতে ইউটিউব এ সার্চ করুন- How to earn money Freelance.

    ফ্রিলান্সিং এ যদি আপনার কাজের দক্ষতা থাকে তাহলে প্রতিমাসে কম করে ৭-১০ হাজার টাকা ইনকাম করতে পারবেন।

    ৩. ব্লগ থেকে কিভাবে টাকা ইনকাম করতে পারবেন (How To Earn Money From Blog)

    নলাইনে টাকা ইনকাম করার ফ্রি একটা প্রক্রিয়া, এখান থেকে টাকা ইনকাম করার জন্য আপনাকে ভিডিও তৈরি বা ডিজিটল ওয়ার্ক করতে হবে না, এখানে শুধু আপনাকে লিখতে হবে। ব্লগ(Blog) সম্পর্কে যদি আপনার কোনো ধারণা না থাকে তাহলে আপনি ইউটিউব এ ভিডিও দেখতে পারেন। এখানে কাজ করার জন্য আপনার কাছে দুইটা বিকল্প থাকবে,

    1.ওয়াড়প্রেস(WordPress) 2. ব্লোগার (Blogger)

    ১.ওয়াড়প্রেস(WordPress): ব্লোগিং করার জন্য সবচেয়ে ভালো এবং ভরসার জায়গা হলো ওয়াড়প্রেস। এখানে কাজ করার জন্য আপনাকে হোস্টিং (Hosting) ও ডোমিন (Domain) নিতে হবে। এগুলো ছাড়া এখানে কাজ করতে পারবেন না।

    ২. ব্লোগার(Blogger): এটা Google এর সম্পুর্ন ফ্রি একটা সার্ভিস, এখানে কাজ করার জন্য আপনাকে হোস্টিং (Hosting) ও ডোমিন (Domain) নেওয়ার কোনো প্রয়োজন হবে না, আপনি ফ্রি-তেই কাজ করতে পারবেন। কিন্তু এখানে আপনি একটা ডোমিন(Domain Name) নিতে পারেন। যেমন আমার ডোমিন নেম www.canbebangali.com 

    একটা ডোমিন নেম এর দাম ৫০০-১০০০ টাকার মধ্যে।

    এই দুই সার্ভিসে কাজ একই, লিখতে হবে। কিন্তু কি লিখবেন, আপনার যা ইচ্ছা তাই লিখতে পারেন। যেমন প্রতিদিনের খবর, নতুন মোবাইল সম্পর্কে, কোনো অনলাইন কাজ নিয়ে, আরো অনেক আছে, আস্তে আস্তে শিখতে পারবেন। Bloging সম্পর্কে বিস্তারিত জানতে ইউটিউব এ সার্চ করুন- How To Earn Money Bloging.

    এখানে আপনি প্রথম দিন থেকে টাকা ইনকাম করতে পারবেন না। আপনাকে প্রথমে ব্লোগ লিখতে হবে, তার পর Google Adsense থেকে টাকা ইনকাম করতে পারবেন। প্রতিমাসে কম করে ৭-১২ হাজার টাকা ইনকাম করতে পারবেন।

    আরো অনেক উপায় আছে যা দিয়ে আপনি টাকা ইনকাম করতে পারবেন, আজকের আলোচনাতে এইটুকুই। আরো বিস্তারিত জানতে সঙ্গে থাকুন।

    Post By – Santosh Barman Canbebangali Team.

    Leave a Comment